সবচেয়ে বুদ্ধিমান স্মার্টফোন; চোখের ইশারায় হবে লক-আনলক

বিশ্বের সবচেয়ে বুদ্ধিমান স্মার্টফোন বাজারে এনেছে স্যামসাং। এই ফোনের অত্যাধুনিক আইরিশ সেন্সর চোখের ইশারায় ফোনকে লক এবং আনলক করেবে।

বেশ কয়েক মাসের জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গ্যালাক্সি নোট ৭ ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনটি উন্মুক্ত করল স্যামসাং। স্যামসাং দাবি করেছে, ‘এটা বিশ্বের সবচেয়ে বুদ্ধিমান স্মার্টফোন’। বুদ্ধিমান বলার কারণ হচ্ছে, ফোনটিতে রয়েছে অত্যাধুনিক সব ফিচার।
মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটিতে এক অনুষ্ঠানে গ্যালাক্সি নোট ৭ উন্মুক্ত করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠানটি। ১৯ আগস্ট থেকে বাজারে পাওয়া যাবে নীল, সোনালি, ধূসর ও কালো রঙে  এই ম্মার্ট ফোন।

কী আছে এই ফোনে

Galaxy_Note_7_3
স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট-7 স্মার্টফোন, সবচেয়ে বুদ্ধিমান ফোন

 

স্যামসাংয়ের তথ্য অনুযায়ী, নোট ৭ ফোনটিতে থাকবে অ্যান্ড্রয়েড ৬.০.১ মার্শম্যালো। ৫ দশমিক ৭ ইঞ্চি আকারের কোয়াড এইচডি ডুয়াল এজ সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে থাকবে ফোনটিতে।

এর পিক্সেল রেজল্যুশন ১৪৪০ বাই ২৫৬০ এবং থাকছে কর্নিংয়ের গরিলা গ্লাস ৫। ফোনটিতে নিরাপত্তা ফিচার হিসেবে থাকছে আইরিশ স্ক্যানার ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। অক্টা কোর প্রসেসর আর চার জিবি র‍্যামের ফোনটিতে ৬৪ জিবি বিল্ট ইন স্টোরেজ থাকবে।

মাইক্রো এসডি কার্ড ২৫৬ জিবি পর্যন্ত সমর্থন করবে। এ ছাড়া স্যামসাং ক্লাউড স্টোরেজ থেকে ১৫ জিবি ক্লাউড স্টোরেজ বিনা মূল্যে পাবেন ক্রেতারা।

Galaxy_Note_7_4
স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট-7

ফোনটির পেছনে অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন সুবিধাসহ ১২ মেগাপিক্সেল ও সামনে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা থাকছে। ফোরজি, এনএফসি, ওয়াই-ফাই, ব্লটুথ, জিপিএস, ইউএসবি টাইপ-সি কানেকটিভিটি সুবিধাসহ ফোনটিতে থাকছে নানা দরকারি সেন্সর। এর ব্যাটারি ৩৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের। ১৬৯ গ্রাম ওজনের ফোনটিতে দ্রুতগতিতে চার্জ দেওয়ার ব্যবস্থা থাকছে। এতে এস পেন ব্যবহার করা যাবে।
স্যামসাং কর্মকর্তারা জানান, প্রথমবারের মতো আইরিশ স্ক্যানার সুবিধা থাকায় ডিভাইসটি হবে আরও নিরাপদ। এ ফিচার ব্যবহার করে চোখের ইশারায় এটি লক ও আনলক করা যাবে।

দাম কেমন হবে

ফোনটির দাম সম্পর্কে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো তথ্য জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি।  তবে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের বিভিন্ন তথ্য থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে ফোনটির দাম হেতে পারে ৭০০ থেকে ৮০০ ডলার। বাংলাদেশের বাজারেও ফোনটি শিগগিরই  আসতে পারে বলে মনে করছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


one × two =