মৌলভীবাজারের জঙ্গি আস্তানা দুটি বাড়ির মালিক এক লন্ডন প্রবাসী

মৌলভীবাজারে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঘিরে রাখা পৃথক বাড়ি দুটির মালিক একই ব্যক্তি। তার নাম সাইফুর রহমান। তিনি লন্ডনপ্রবাসী। স্থানীয় লোকজন ও বাড়ি দুটির তত্ত্বাবধানে থাকা মালিকেবএক আত্মীয়  এই তথ্য জানিয়েছেন।

জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে গতকাল মঙ্গলবার রাত থেকে মৌলভীবাজারের পৃথক দুটি স্থানে দুটি বাড়ি ঘিরে রাখে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

একটি বাড়ি মৌলভীবাজার পৌরসভার বড়হাট এলাকায় অবস্থিত। অপর বাড়িটির অবস্থান সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের নাসিরপুর এলাকায়।দুটি বাড়ির মধ্যে দূরত্ব প্রায় ২০ কিলোমিটার।

বাড়ি দুটির তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সাইফুর রহমানের মামাতো বোনের স্বামী জুয়েল। তিনি জানান, নাসিরপুরের বাড়িতে টিনের চালার তিনটি ঘর রয়েছে। একটি ঘরে পরিবার নিয়ে  থাকেন তিনি। একটি ঘরে এক রিকশাচালক থাকেন। অন্য ঘরটিতে ভাড়াটেরা থাকেন।

জুয়েলের তথ্যমতে, নাসিরপুরের ঘরে গত জানুয়ারিতে বর্তমান ভাড়াচিয়ারা ওঠেন। ভাড়াটিয়া তাঁর নাম বলেছেন মাহফুজ, তার বাড়ি টাঙ্গাইল।  একটি কোম্পানির ডিলার হিসেবে কাজ করেন বলে পরিচয় দিয়েছেন তিনি। সাত হাজার টাকায় ঘরটি ভাড়া দেওয়া হয়। ঐ ঘরে আটজন থাকে বলে জানান তিনি। 

মৌলভীবাজার পৌরসভার বাড়ির ভাড়াটে সম্পর্কে জুয়েল বলেন, সেখানকার ভাড়াটে তাঁর নাম বেলাল বলেছেন। তিনি নিজেকে একটি কোম্পানির ম্যানেজার পরিচয় দিয়েছেন।

নাসিরপুরের স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, লন্ডনপ্রবাসী সাইফুর রহমান আজ ( বুধবার) ভোরে তাঁর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেন। নাসিরপুরের বাড়িতে গিয়ে ভাড়াটেকে ডাকতে বলেছেন তিনি।

তিনি বলেন, সাইফুর রহমানের ফোন পেয়ে তিনিসহ পাঁচ-ছয়জন ওই বাড়িতে যান। তাঁদের সঙ্গে পুলিশও ছিল। ভাড়াটের ঘরে কল বেল দিলে ভেতর থেকে একজন দরজা খোলেন। পুলিশ দেখে তিনি সঙ্গে সঙ্গে দরজা বন্ধ করে দেন। একটু পরে ঘরের ভেতরে হাতুড়ি পেটানোর মতো করে একটা শব্দ হয়। এরপরই পুলিশ উপস্থিত সবাইকে সরে যেতে বলে। একটু পরে ওই বাড়ি থেকে বিকট শব্দ শোনা যায়।

এই ঘটনার সময় ওই বাড়ি থেকে সাইফুর রহমানের মামাতো বোন ও রিকশাচালকের পরিবারটি সরে যায়।

স্থানীয়রা থেকে থেকে গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়ার কথাও জানিয়েছেন।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহ জালাল বলেছেন, নাসিরপুরের জঙ্গি আস্তানা থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে গ্রেনেডও ছোড়া হয়েছে।

দুপুর পৌনে ১২টার দিকে নাসিরপুরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে মাইকিং করতে দেখা যায়। সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানার আশপাশ থেকে লোকজনকে নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করতে বলা হয়। এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। মানুষের মধ্যে কৌতূহলের পাশাপাশি আতঙ্ক কাজ করছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


sixteen − thirteen =