বাড়ি ছাড়তেই হবে মওদুদকে: রিভিউ আবেদন খারিজ

গুলশানের বাড়ি ছাড়তেই হচ্ছে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদকে। বাড়ি নিয়ে আপিল বিভাগের রায় পুনর্বিবেচনায় মওদুদের করা আবেদনটিও খারিজ করে দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত। তবে, রায়ের পরও মওদুদ আহমদ সাংবাদিকদের বলেছেন, বাড়ি ছাড়বেন না তিনি।

অন্যদিকে সরকারি বাড়ি আত্মসাতের অভিযোগে মওদুদের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা থেকে তাকে অব্যাহতি দিয়েছে আদালত।

গত ৩১মে শুনানি শেষে মামলাটি রায়ের জন্য রোববার সময় রেখেছিল আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির আপিল বিভাগ বেঞ্চ এই রায় ঘোষণা করেন।

বাড়ি ছাড়বোনা: মওদুদ

এদিকে আইনি লড়াইয়ে সবশেষ ধাপে হেরে যাওয়ার পরও সাবেক আইনমন্ত্রী ও সিনিয়র আইনজীবী মওদুদ আহমদ বলেণ,  “আমিতিনি বাড়ি ছাড়বো না। বাড়ির বিষয়টি আমার আর মালিকের। এখানে সরকারের কোন বিষয় নেই।”

বাড়ির প্রকৃত মালিক ও ঘটনাপ্রবাহ

মামলার বিবরণ ও দুদকের তথ্যমতে,  গুলশান-২ নম্বর সেকশনের ১৫৯ নম্বর প্লটের  বাড়িটির প্রকৃত মালিক ছিলেন পাকিস্তানি নাগরিক মো. এহসান। ১৯৬০ সালে তৎকালীন ডিআইটির ( বর্তমান রাজউক) কাছ থেকে এক বিঘা ১৩ কাঠার এ বাড়ির মালিকানা পান এহসান। ১৯৬৫ সালে বাড়িটির মালিকানার কাগজপত্রে এহসানের পাশাপাশি তার স্ত্রী অস্ট্রিয় নাগরিক ইনজে মারিয়া প্লাজের নামও অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

Moudud gulshan house

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে স্ত্রীসহ ঢাকা ছেড়ে যান এহসান। তারা আর ফিরে না আসায় ১৯৭২ সালে এটি পরিত্যক্ত সম্পত্তির তালিকাভুক্ত হয়।

১৯৭৩ সালের ২ আগস্ট মওদুদ আহমদ তার ইংল্যান্ড প্রবাসী ভাই মনজুরের নামে থাকা একটি আমমোক্তারনামার ভিত্তিতে বাড়িটি সরকারের কাছ থেকে বরাদ্দ নেন। কিন্তু বাড়িটির নামজারি কার্যক্রম নিয়ে তৈরি হয় জটিলতা ।

মামলার সূত্রপাত যেভাবে

মওদুদ আহমমের ভাই মনজুর আহমেদ তার অনুকূলে বাড়িটির নামজারি করার জন্য হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। আবেদনের শুনানি নিয়ে গুলশানের ওই বাড়িটি মনজুর আহমদের নামে মিউটেশন করার জন্য রায় দেন হাইকোর্ট। রাজউক এ রায়ের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল দায়ের করে ২০১১ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি। ২০১৪ সালের ৯ মার্চ আপিল বিভাগ রাজউককে আপিলের অনুমতি দেন।

গত বছরের ২ আগস্ট মওদুদ আহমদের ভাই মনজুর আহমদের নামে ওই বাড়ির নামজারির নির্দেশ দিয়ে হাইকোর্টের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে রাজউকের আপিল গ্রহণ করেন আপিল বিভাগ।

২০১৬ সালের ৩ আগস্ট বাড়ি নিয়ে  আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হলে  নিয়ম অনুযায়ী, রায় প্রকাশের ৩০ দিনের মধ্যে এই রায় পুনর্বিবেচনায় রিভিউ আবেদন করেন মওদুদ ।

Bangladesh suprem court

সরকারি বাড়ি আত্মসাতের অভিযোগে করা দুদকের মামলাটি বাতিল করে দেয়া রায় পুনর্বিবেচনার জন্য আরেকটি রিভিউ আবেদন করে দুদক।

রোববার দুটি রিভিউ আবেদনই খারিজ করে দেয় সর্বোচ্চ আদালত। ফলে মওদুদকে তার গুলশানের বাড়ি ছাড়তেই হচ্ছে। তবে, সরকারি বাড়ি আত্মসাতের অভিযোগে করা দুদকের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন তিনি।

 

 

 

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


11 − three =