শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস বাতিল

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

এক শিক্ষককে লাঞ্চিত করার ঘটনায় লাঞ্ছনাকারি কর্মকর্তাদের শাস্তির দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মুখে ক্লাস বাতিল করলো বেসরকারি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়। 

বুধবার বেলা পৌনে তিনটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সৈয়দ সাদ আন্দালিব স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বুধ ও বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো ক্লাস হবে না। তবে, এসময় নির্ধারিত পরীক্ষাগুলো অনুষ্ঠিত হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

শিক্ষককে লাঞ্ছনার ঘটনা তদন্তে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের করা কমিটি আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা প্রত্যাখ্যান করায় নতুন করে আরেকটি কমিটি করা হয়েছে, যার প্রধান হিসেবে রয়েছেন গণিত বিভাগের চেয়ারম্যান আ ফ ম ইউসুফ হায়দার।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির শিক্ষক অধ্যাপক আফসান চৌধুরী, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি তাজদিন হাসান ও একজন ছাত্র প্রতিনিধি।

৩০ জুলাই শিক্ষক ফারহান উদ্দিন আহমেদের সঙ্গে কি ঘটেছিল  পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে তার ব্যাখ্যা তৈরি করতে বলা হয়েছে কমিটিকে। প্রয়োজনীয় নীতিমালা মেনে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল কিনা তাও দেখতে বলা হয়েছে।

এদিকে শিক্ষক লাঞ্ছনাকারী কর্মকর্তাদের শাস্তির দাবিতে বুধবারও বিক্ষোভ করে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের শিক্ষার্থীদের দাবি নিয়ে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা থাকলেও কোনো সাড়া না পেয়ে তারা ক্যাম্পাস থেকে বেরিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ও দুই নম্বর ভবনে ঢোকার গেট বন্ধ করে দেয়।

এরপর তারা সামনের রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করতে থাকলে কয়েকজন শিক্ষক এসে বুঝিয়ে তাদের ভেতরে নিয়ে যান। বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে আবার শিক্ষার্থীরা রাস্তার দুই পাশে দাড়িয়ে মানববন্ধন করে।

এর আগে দুপুর ২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ফ্যাকাল্টি মেম্বার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে সমর্থন জানান।

আইন বিভাগের শিক্ষক ফারহান উদ্দিন আহমেদ রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ শাহুল আফজালের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনার পর রোববার থেকে উত্তেজনা চলছে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে।

চুক্তিভিত্তিক নিয়োগে শিক্ষকতা করছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক শিক্ষার্থী ফারহান। তার দাবি, চুক্তির মেয়াদ ৩০ অগাস্ট পর্যন্ত হলেও তার আগেই তাকে কর্মচ্যুত করে নোটিস দেয় প্রশাসন।  প্রতিবাদ করলে তার উপর হামলা হয়।

 

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


one × three =